যেভাবে ফাঁদে পড়ে ভারতে পাচার ও যৌন নির্যাতিত হচ্ছে তরুণীরা

টিকটক হৃদয় বাবু
টিকটক হৃদয় বাবু

করোনায় স্কুল বন্ধ থাকায় শরীয়তপুরের দশম শ্রেণি পড়ুয়া এক ছাত্রী ফেসবুকে আসক্ত হয়ে মুন্সিগঞ্জের এক যুবকের প্রেমে পড়ে। এক পর্যায়ে বিয়ে করে। চার মাস পর প্রতারিত হয়েছি অভিযোগ তুলে স্বামীর ঘর ছেড়ে বাড়ি চলে আসে।

বাড়ি আসার এক মাস পর ফেসবুকে তরুণীর পরিচয় হয় যশোরের একটা ছেলের সাথে। পরিচয় থেকে প্রেম, অতপর বিয়ের উদ্দেশ্যে বাড়ি থেকে পালিয়ে রাতের আঁধারে মোটরসাইকেলে চড়ে যশোর চলে আসে। ছেলেটি তাকে হোটেলে উঠাতে চাইলে রাজি হয়নি। পরে ছেলেটি তাকে নিয়ে যায় বস্তিতে। সেখানে এক মহিলার কাছে রাত থাকে। কাছে থাকা তিন হাজার টাকা ও মোবাইল কেড়ে নেয় ওই ছেলে।

পরদিন সকালে যশোর চাঁচড়া বাসস্ট্যান্ড এলাকায় নিয়ে যায় ভারতে পাচার করার উদ্দেশ্যে। বাসে উঠার আগে তাদের গতিবিধি নজরে আসে পাজার রোধে কর্মরত অপারেশন জেনারেশন এর মাঠ কর্মকর্তা সুনিতা সরকারের। ছেলেটি বিপদ বুঝে পালিয়ে যায়। মেয়েটিকে উদ্ধার করে যশোর মহিলা অধিদপ্তরের কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হয়।

সম্প্রতি ভারতে নারী পাচারের সাথে জড়িত কয়েকটি চক্রকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। আশরাফুল ইসলাম ওরফে বস রাফি রিমান্ড শেষে স্বীকারোক্তি দিয়েছে গত পাঁচ বছরে প্রায় পাঁচ শতাধিক নারীকে ভারতে পাচার করেছে। তাদের চক্রে প্রায় ৫০ জন জড়িত রয়েছে। গ্রেফতারকৃত আরো এক পাচারকারীর নাম মেহেদি। হাজারের বেশি নারীকে ভারতে পাচারের কথা মেহেদি স্বীকার করেছে বলে প্রশাসন জানিয়েছে।

আশরাফুল ইসলামের অন্যতম সহযোগী হচ্ছে টিকটক বাবু। টিকটক অ্যাপে তরুণীদের নানাভাবে প্রলুব্ধ করতো। সুপারমার্কেটে চাকরি বা ভারতে ভালো বেতনে পার্লারের কাজ ইত্যাদি কথা বলতো। প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলতো। তাদের পাতা ফাঁদে পা দিয়ে ভারতে পাচারের শিকার হয়েছেন বহু নারী।

সম্প্রতি টিকটক বাবু ও তার সহযোগীরা মিলে পাচার করা একটি মেয়ের ওপর অকথ্য যৌন নির্যাতন চালায়। সেই ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হলে প্রশাসনের টনক নড়ে। ব্যাপক অনুসন্ধান, গ্রেফতার, জিজ্ঞাসাবাদে চাঞ্জল্যকর সব তথ্য বেরিয়ে আসছে।

তরুণীদের প্রলুব্ধ করতে বিভিন্ন পার্টির আয়োজন করতো টিকটক বাবু। এর মধ্যে অন্যতম ছিল ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারিতে নারায়ণগঞ্জের অ্যাডভেঞ্চার ল্যান্ড পার্কে ৭০ থেকে ৮০ জনকে নিয়ে টিকটক হ্যাংআউট। এছাড়া গত বছরের ১৮ সেপ্টেম্বর গাজীপুরের আফরিন গার্ডেন রিসোর্টে ৭০০ এর অধিক তরুণ তরুণীকে নিয়ে পুল পার্টি।

বখে যাওয়া তরুণ তরুণীরা টিকটক বেশি ব্যবহার করে এবং অজান্তেই অপরাধী চক্রের পাল্লায় পড়ছে বলে প্রশাসন মনে করছে।

আরো ফিচার পড়তে ক্লিক করুন Feature BD